মিনা ছেড়ে আরাফাত ময়দানে হাজিরা

পবিত্র হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা আজ। আরাফাতের ময়দানে হাজিদের কণ্ঠে আজ সমস্বরে উচ্চারিত হচ্ছে লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লা শারিকা লাকা লাব্বাইক।

সোমবার সকাল থেকেই মিনা ছেড়ে আরাফাতে উপস্থিত হচ্ছেন হাজিরা। যেখানে স্বাস্থ্য বিধি মেনে খুতবা শুনবেন প্রায় ৬০ হাজার মুসল্লি।

মুসল্লিদের উদ্দেশে খুতবা দেবেন, মসজিদুল হারামের অন্যতম ইমাম শায়খ ড. বানদান বিন আবদুল আজিজ বালিলাহ। যা অনুবাদ হবে বাংলাসহ ৯ টি ভাষায়।

দিনব্যাপী কার্যক্রম শেষে মুজদালিফায় যাবেন তারা। যেখানে নামাজ আদায় ও পাথর সংগ্রহ করবেন মুসল্লিরা।

মঙ্গলবার পাথর নিক্ষেপ, পশু কোরবানি ও মাথার চুল কাটঁবেন হাজিরা। হাজিদের যাতায়াতে ব্যবহার করা হচ্ছে ৩ হাজার বাস। সর্বাত্মক সহায়তায় নিয়োজিত আছেন ২৫ হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী

ম্যারাডোনা স্টেডিয়ামে ‘সুপার কাপে’ মুখোমুখি ইতালি-আর্জেন্টিনা

ইতিমধ্যে নিজের মহাদেশে শিরোপার খেতাব অর্জন করে নিয়েছে ইতালি এবং আর্জেন্টিনা।

এবার তারা একে অপরের বিরুদ্ধে মাঠে নামতে পারে। ‘সুপার কাপে’ মহাদেশীয় সেরাদের লড়াইয়ে লিওনেল মেসির নেতৃত্বাধীন লা আলবিসেলেস্তের মুখোমুখি হতে পারে জর্জিও চিয়েলিনির আজুরিরা।

এদিকে নিউইয়র্ক টাইমসের তারিখ পাঞ্জার মতে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল নিয়ামক সংস্থা কনমেবল এবং উয়েফার মধ্যে এই নিয়ে বেশ কিছু সময় কথাবার্তা চলার পর এখন প্রায় সিদ্ধান্ত পাকা হওয়ার পথে।

আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়েগো মারাদোনার কর্মক্ষেত্র নেপলস এই ঐতিহাসিক লড়াইয়ের সাক্ষী থাকতে পারে।

আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ্বকাপ জেতার পাশপাশি নাপোলির হয়ে ইতিহাস রচনা করে দলকে সিরি এ জেতানোর জন্য আজও বন্দর শহরে কার্যত পূজিত হন মারাদোনা। সেই কারণেই দুই দলের ম্যাচ ইতালির এই শহরে করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে শোনা গেছে।

তবে মহাদেশীয় সেরাদের মধ্যেকার ম্যাচের পরিকল্পনা নতুন তো নয়ই, বরং বেশ পুরনো। বহু বছর ধরে পৃথিবীর নানা মহাদেশের খেতাব জয়ী দলগুলি কনফেডারেশন কাপে একে অপরের মুখোমুখি হত।

গত ২০১৭ সালেও এমনটা দেখা গেছে। সেইবার জার্মানি কনফেডারেশন কাপের খেতাব জিতে নেয়। তবে এরপরেই টুর্নামেন্টটি আর আয়োজন না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সেই টুর্নামেন্ট চালু না হলেও সুপার কাপের মতো একটি ম্যাচে দুই সবচেয়ে শক্তিশালী ফুটবল মহাদেশের সেরা দুই দল একে অপরের মুখোমুখি হতে পারে।

তবে ফুটবলের ব্যস্ত সূচির জন্য ও করোনার কথা মাথায় রেখে এখনই সেই ম্যাচ করা সম্ভব নয়। সম্ভবত ২০২২ কাতার বিশ্বকাপের আগে কোন সময়েই এই ম্যাচ আয়োজিত হতে পারে।

‘যারা মেসির সমালোচনা করে তারা ফুটবলের কিছুই বোঝে না’

যারা মেসির সমালোচনা করে তারা ফুটবলের কিছুই বুঝে না, এমন মন্তব্য করলেন দিয়েগো ম্যারাডোনার ছেলে দিয়েগো সিনেগ্রা।

শুধু তাই নয়, মেসি এবং ম্যারাডোনার তুলনাতেও বিরক্তি প্রকাশ করেছেন সাবেক এই ইতালিয়ান ফুটবলার।

পেলে-ম্যারাডোনা, মেসি-রোনালদো নামগুলো বারবার সামনে আসে তাদের ফুটবলীয় অর্জনের কারণে। নিজেদের সময়ে ফুটবল দক্ষতায় সমর্থকদের মন জয় করেছেন তারা।

তবে সর্বকালের সেরা তর্কে কারো কাছে একজন এগিয়ে তো আরেকজনের কাছে অন্যজন এগিয়ে।

এভাবেই চলছে সমর্থক, বিশ্লেষক আর ফুটবল বোদ্ধাদের নানা মত। যা চলবে ভবিষ্যতেও। তবে ম্যারাডোনার সঙ্গে তুলনায় নাকি ঘোর আপত্তি লিওনেল মেসির। এমনটাই দাবি ম্যারাডোনার সন্তান দিয়েগো সিনেগ্রার।

এ নিয়ে দিয়েগো সিনেগ্রা বলেন, ম্যারাডোনার সাথে যখন মেসির তুলনা করা হয় তখন সেটি তার পক্ষে গ্রহণ করা কঠিন হয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, মেসি সাধারণ মানুষের মাঝে সবসময়ের সেরা ফুটবলার। আর তার বাবাকে বলা হয় ফুটবল ঈশ্বর।

মেসিকে নিয়ে দিয়েগো সিনেগ্রা বলেন, আমি তাকে পছন্দ করি, তাকে ভালোবাসি। ফুটবল ইতিহাসে তার মতো কোয়ালিটিফুল ফুটবলার আর একজনও নেই।

জাতীয় দলের হয়ে তার ট্রফি জয় দেখে আমি খুব খুশি। যারা মেসিকে নিয়ে সমালোচনা করে তারা ফুটবলের কিছুই বুঝে না।

‘পেলে, ম্যারাডোনা নাকি মেসি, কে সেরা’র বিতর্ক যেমন চলবে তেমনি সমর্থকদের ভালোবাসায়ও সিক্ত হবেন প্রিয় ফুটবলাররা।

তবে মেসির হাতে বিশ্বকাপ ট্রফি উঠলে সেই তর্কের অবসান হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে অনেকটাই।

ছেলের ছবি প্রকাশ করে সবার দোয়া চাইলেন সাকিব আল হাসান

এ বছরের ১৬ মার্চ তৃতীয় সন্তানের বাবা হয়েছেন সাকিব আল হাসান। তখন নাম প্রকাশ করলেও নবজাতকের

ছবি প্রকাশ করেন নি এই অলরাউন্ডার। ভক্তদের সেই প্রতীক্ষার অবসান হলো।

শনিবার (১৭ জুলাই) ফেসবুকে নিজের অফিসিয়াল পেজে পুত্র সন্তানের ছবি প্রকাশ করে দোয়া চাইলেন সাকিব।

বিশ্বসেরা সাকিব লিখেছেন, আমার ছেলে আইজাহ, সবাই দয়া করে ওকে আপনার প্রার্থনায় রাখুন।

মাথায় ক্যাপ আর গায়ে হলুদ রঙের পলো-শার্ট পরা ছোট আইজাহ।

গত ১ জানুয়ারি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি পোস্টে তৃতীয় সন্তান আসার খবর জানান সাকিব।

তখন সাকিব তার পোস্টে লিখেছিলেন, নতুন বছর, নতুন শুরু, নতুন সংযোজন। সবাইকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা।

এরপর গত মার্চে স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশিরের ঘরে দুই কন্যার পর আসে এক পুত্র সন্তান। পুত্র সন্তান নাম রাখা হয়েছে ‘আইজাহ আল হাসান’।

বাংলাদেশ দলে ইতিহাসে প্রথম কোরআনে হাফেজ ক্রিকেটার

এবার বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে ভারত যাচ্ছে।

সফরে চারদিনের একটি ম্যাচে ও ৫টি ওয়ানডে ম্যাচে খেলবে টাইগাররা।

গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আফগান যুবাদের বিপক্ষে সিরিজ খেলার জন্য ১৬ সদস্যের স্কোয়াড চূড়ান্ত করেছে।

যদিও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়নি এখনো। আর এই সফরের চূড়ান্ত এই দলে সুযোগ পেয়েছেন হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার চর নুরআহমদ গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে কোরআনের হাফেজ মহিউদ্দিন তারেক।

তিনি বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম কোরআনে হাফেজ ক্রিকেটার যে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবেন!

এদিকে তারেক ছোটবেলা থেকেই পড়াশুনার পাশাপাশি ক্রিকেটকে আপন করে নিয়েছিলেন।

কোরআনে হাফেজ তারেক বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) পাঁচ বছর আগে ক্লাস সেভেনে ভর্তি হন। ইতোমধ্যে অনূর্ধ্ব ১৬, ১৭, ১৮ দলে খেলেছেন।

তারেক একজন পেস বোলার। তবে ব্যাটিং খুব ভালো করেন। সম্প্রতি ইয়ুথ টুর্নামেন্টে অলরাউন্ডার পারফরমেন্সের জন্য বিসিবি ঘোষিত ৪৫ জনের প্রাথমিক দলে সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি।

মেসির পোস্ট করা ছবিতে লাইক পড়েছে ২ কোটিরও বেশি

আর্জেন্টিনার জার্সিতে ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে প্রথম বড় কোনো আন্তর্জাতিক শিরোপা জেতার স্বাদ পেয়েছেন লিওনেল মেসি।

আর আলবিসেলেস্তেরাও ২৮ বছরের প্রতীক্ষার পর পেয়েছে শিরোপার স্বাদ।

এমন অবিস্মরণীয় অর্জনের পর বর্তমানে ছুটি কাটাচ্ছেন আধুনিক ফুটবলের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার। তাই বলে তার রেকর্ড গড়া কিন্তু থেমে নেই।

সদ্য সমাপ্ত কোপা আমেরিকার আসর শেষে অনেক সাধের ট্রফিটি পাশে বসিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি আপলোড করেছিলেন মেসি।

ক্যাপশনে লিখেছিলেন, ‘কী সুন্দর উন্মাদনা! এটা অদ্ভুত সুন্দর। ধন্যবাদ ঈশ্বর। আমরা চ্যাম্পিয়ন! চলো এগিয়ে চলো!’

মেসির এই পোস্ট ইনস্টাগ্রামে রেকর্ড গড়েছে। এই ছবি ভেঙে দিয়েছে অতীতের সব রেকর্ড। ছবিটি এখন ইনস্টাগ্রামে সর্বোচ্চ লাইক পাওয়া স্পোর্টস পিক বা খেলার জগতের ছবি।

মজার ব্যাপার, এখানেও মেসি পেছনে ফেলেছেন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে।

গত ২৫ নভেম্বর ডিগেয়ো ম্যারাডোনার মৃত্যুতে জুভেন্টাসের পর্তুগিজ উইঙ্গার যে ছবি পোস্ট করেছিলেন, এতদিন সেটি ছিল সর্বোচ্চ লাইক পাওয়া স্পোর্টস পিক।

মেসির পোস্ট করা ছবি এরই মধ্যে ২ কোটির বেশি লাইক পড়েছে। তবে সব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিলে এটি ষষ্ঠ সর্বোচ্চ লাইক পাওয়া ছবি।

বাচাইকৃত পোস্ট