ইসরাইল সেনাদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে আল আকসার সামনে ছোট্ট শিশুর নামাজ আদায়

শত বাঁধা উপেক্ষা করেও পবিত্র আল আকসার সামনে ছোট্ট শিশুর নামাজ আদায় দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়, ফিলিস্তিনী প্রতিটি শিশু যেন এক একজন মুজাহিদ হিসেবে তাদের আবির্ভাব,

বীর মুজাহিদরা আল্লাহ প্রিয় মায়েদের গর্ভ থেকেই জন্ম নেয় এটাই তার প্রমাণ,

ফিলিস্তিন এর এক মা স্বপ্ন দেখেন, তার সন্তান একদিন বড় হয়ে, স্বাধীন ফিলিস্তিন উপহার দেবে

নিজের ছোট্ট শিশু সন্তানের হাতে অস্র তুলে দিয়ে স্বাধীন ফিলিস্তিন গড়ার স্বপ্ন দেখেন ফিলিস্তিনি এক মা, নির্যাতিত নিপিড়ীত মানুষের কান্না থামাবে, ভেঙে দিবে শত্রুদের কালো হাত, বিজয় চিনিয়ে আনবে ইহুদিবাদী ইসরাইলের হাত থেকে, আমাবস্যার রাত কেটে নতুন সূর্য উদিত হবে সেই আশায় বুক বেধে চেয়ে আছে মহান মালিকের দরবারে, কবে আসবে সে বিজয়?

আরও সংবাদ

আমিরাতের হোটেলে চুরি করছে ইসরাইলিরা

আরব আমিরাতের হোটেল থেকে সব কিছু চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে ইসরাইলি পর্যটকরা।

হোটেলে রাখা লাইট, তোয়ালে এমনকি দেয়ালে টানানো দামি পেইনটিংও চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে দখলদাররা। খবর আরব নিউজের।

এক মাস আগে আমিরাতের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার পর থেকে দু-দেশের মধ্যে যাত্রীবাহী বিমানচলাচল এবং পর্যটকদের ভ্রমণ শুরু হয়েছে।

এর মধেই আমিরাতের একটি বিলাসবহুল হোটেল এ চুরির অভিযোগ করেছে ইসরাইলি পর্যটকদের বিরুদ্ধে। ইসরাইলের ইয়েদিয়ত আহারোনট পত্রিকায়ও এ নিয়ে গত মঙ্গলবার প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

এক ব্যবসায়ীর বরাত দিয়ে পত্রিকাটির প্রতিবেদনে বলা হয়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসায়ীক কাজে আমিরাতে বসবাস করছেন। সম্প্রতি হোটেলের লবিতে গিয়ে ভয়বহ একটি ঘটনার সাক্ষী হলেন।

সেখানে তিনি দেখলেন, চেক আউটের সময় ইসরাইলি পর্যটকের ব্যাগ থেকে একে একে হোটেলের চুরি যাওয়া সব জিনিসপত্র বের করা হচ্ছে।

হোটেলটির ম্যানেজার জানিয়েছেন, হাজার হাজার পর্যটক আসেন তার হোটেলে। মাঝে মাঝে দু-একজন ঝামেলা করলেও সম্প্রতি ইসরাইলি পর্যটকদের আচরণ দেখে তিনি বিস্মিত।

ম্যানেজার বলেন, তাদের ব্যাগ থেকে হোটেলের ইস্ত্রি, তোয়ালে পর্যন্ত পাওয়া গেছে। আমরা যখন পুলিশ ডাকতে গেছি- তখন তারা ক্ষমা চেয়ে এসব চুরি করা সামগ্রী ফেরত দিয়েছেন।