আমার বিরুদ্ধে মামলা প্রাথমিক তদন্তেই খারিজ হয়ে যাবে : মামুনুল হক

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যের বিরোধিতা করে বক্তব্য দেওয়ায় খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ‘রাষ্ট্রদ্রোহের’ অভিযোগ এনে দুটি মামলার আবেদন করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি মামলার আবেদনে মামুনুলের সঙ্গে আরো আসামি করা হয়েছে হেফাজতে ইসলামের আমির জুনাইদ বাবুনগরী ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমির সৈয়দ ফয়জুল করীমকে।

আপনার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হয়েছে। কিভাবে মোকাবেলা করবেন? গণমাধ্যমের পক্ষ থেকে প্রশ্ন করা হলে- মামুনুল বলেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ইস্যুতে যে মামলা করা হয়েছে, তার তথ্য-উপাত্ত দুর্বল। প্রাথমিক তদন্তেই তা খারিজ হয়ে যাবে বলে আশা করছি।

এর আগে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল সোমবার সকালে ঢাকার মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালতে প্রথম মামলাটির আবেদন করেন। একই আদালতে দ্বিতীয় আবেদনটি করেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট মশিউর মালেক।

ভাস্কর্যবিরোধী বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে হেফাজত আমির জুনাইদ বাবুনগরী, খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মামুনুল হক ও ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের নায়েবে আমির মুফতি ফয়জুল করীমের বিরুদ্ধে মানহানির মামলার আবেদন খারিজ হয়ে গেছে।

মামলা গ্রহণ করার মতো কোনো উপাদান না থাকায় বৃহস্পতিবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার এ আবেদন খারিজ করে দেন। এর আগে বুধবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালতে এ মামলার আবেদন করেন জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী।

এ মামলায় আরো অভিযুক্ত করা হয়- বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তবে মামুনুল মনে করছেন, তাঁর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাও খারিজ হয়ে যাবে। আজ শুক্রবার এক গণমাধ্যমে প্রকাশিত এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ দাবি করেন।

মামুনুল হক ঢাকার বিএমএ মিলনায়তনে এক আলোচনাসভায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ‘ভেঙে ফেলার হুমকি দেন’, যা দেশ ও সরকারের স্থিতিশীলতাকে ‘হুমকির মুখে’ ফেলে দিয়েছে।

আরও সংবাদ

ইসলাম গ্রহণ করলেন নেলসন ম্যান্ডেলার নাতি

দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার নাতি মান্ডলা ম্যান্ডেলা ইসলাম গ্রহণ করেছেন। যদিও তিনি ২০১৬ সালে ধর্মান্তরিত হয়েছিলেন কিন্তু খুব কম লোকই জানে এ বিষয়টি। যারা বিষয়টি এখনো জানেন না তাদের জন্য নতুন করে খবরটি দেয়া হলো।

নেলসন ম্যান্ডেলার মানব ইতিহাসে সবচেয়ে অনুপ্রেরণাদায়ক ব্যক্তিদের অন্যতম হয়ে উঠার গল্প অধিকাংশ মানুষই জানেন। তিনি আফ্রিকা ও বহির্বিশ্বে বর্ণবাদ ও দুঃশাসনের বিরুদ্ধে আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন।

অপরদিকে, মান্ডলা ম্যান্ডেলার জীবন সম্পর্কে যা জানা যায় তা হলো, তার জন্ম ১৯৭৪ সালে। তিনি রোডস ইউনিভার্সিটি থেকে গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন। তার প্রধান বিষয় ছিল রাষ্ট্রবিজ্ঞান। তিনি ২০০৯ সালে রাজনীতির মাঠে পা রাখেন। পরে ২০১৬ সালে এক মুসলিম নারীকে বিয়ে করেন। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, তার স্ত্রীই তাকে ইসলামের ছায়াতলে যেতে সাহায্য করেছেন।

তিনি ওই মুসলিম নারীকে বিয়ে করার দুই মাস আগে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। তিনি তার বাবা-মাকেও ইসলামে আসার ব্যাপারে উৎসাহিত করেন। তিনি মুসলিম সম্প্রদায়কে ধন্যবাদ জানান তাকে উন্মুক্ত হাতে গ্রহণ করার জন্য এবং তাকে উষ্ণ শুভেচ্ছা জানানোর জন্য।

২০১৭ সালে পাকিস্তান সফরের সময় মান্ডলা ম্যান্ডেলা বলেছিলেন, তিনি ইসলামের সৌন্দর্য উপভোগকারী হিসেবে নিজেকে খুবই ভাগ্যবান মনে করছেন।

সূত্র : ইসলামিক ইনফরমেশন