কারাবাখ বিজয় উদযাপনে আজারবাইজানে এরদোগান

বিরোধপূর্ণ অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আর্মেনিয়ার বিরুদ্ধে আজারিদের বিজয় উদযাপনে অংশ নিতে বৃহস্পতিবার আজারবাইজান সফরে যান তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

তার আগমন সামনে রেখে বড় আকারের বিজয় কুচকাওয়াজের মহড়া দিতে রাজধানী বাকুজুড়ে ছয় সপ্তাহের লড়াইয়ে জব্দ করা অস্ত্র ও যুদ্ধসম্ভারের প্রদর্শন করছে আজারবাইজান।

এরদোগানের অফিস জানায়, ‘গৌরবময় বিজয়’ একসঙ্গে উদযাপনে তুর্কি নেতার এ সফর বড় সুযোগ করে দিয়েছে।

আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভের সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে এরদোগানের। এ ছাড়া এই সামরিক প্রদর্শনীতেও সভাপতিত্ব করবেন।

পাহাড়ি অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণে আর্মেনিয়ার বিরুদ্ধে বিজয়ে দেশজুড়ে উৎসবমুখর পরিবেশ চলছে।

এরদোগানের অফিস জানায়, তার এই সফর দুই বন্ধু দেশের সম্পর্ক জোরদারের সুযোগ বাড়াবে। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফরমে আজারিদের ন্যায়সঙ্গত অধিকারের কথা বলা সহজ করে দেবে।

গত মাসে নাগোরনো-কারাবাখের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আজারবাইজানের ঐতিহাসিক বিজয় এরদোগানের গুরুত্বপূর্ণ ভূরাজনৈতিক অভ্যুত্থান হিসেবে দেখা হচ্ছে। সাবেক সোভিয়েত ককেসাস অঞ্চলে ক্ষমতার ভারসাম্যে প্রভাব বিস্তারে তুরস্ককে নেতৃত্বের পর্যায়ে নিয়ে গেছেন তিনি।

গত সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে কারাবাখের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আর্মেনিয়া-আজারবাইজানের লড়াই শুরু হয়। এতে আজারিদের সামরিকভাবে সহায়তা করে তুরস্ক। যুদ্ধে পাঁচ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

ভেনিজুয়েলার নির্বাচনে মাদুরোর সমাজতন্ত্রী পার্টির বিজয়

নিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন সমাজতন্ত্রী পার্টি দেশটির জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বড় ধরনের বিজয় লাভ করেছে। যখন আমেরিকাসহ পাশ্চাত্যের বহু সংখ্যক দেশ মাদুরো সরকারের ওপরে নিষেধাজ্ঞা আরোপসহ নানামুখী চাপ সৃষ্টি করেছে তখন তার দল এই বিজয় পেল।

এ বিজয়ের মধ্যদিয়ে মাদুরো দেশটিতে তার ক্ষমতা আরো সুসংহত করতে সক্ষম হবেন বলে মনে করা হচ্ছে।

মার্কিন সমর্থিত বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদো তার জোটকে নির্বাচন বয়কট করার আহবান জানিয়েছিলেন। এ সত্ত্বেও ভেনিজুয়েলার সাধারণ মানুষ ব্যাপকভাবে নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।

ভেনিজুয়েলার জাতীয় নির্বাচন পরিষদের সভাপতি ইন্দিরা আলফোনজো জানিয়েছেন, মাদুরো ও তার ক্ষমতাসীন সমাজতন্ত্রী দল এ পর্যন্ত গণনা করা শতকরা ৮০ ভাগ ভোটের মধ্যে ৬৭.৭ শতাংশ ভোট পেয়েছে। বয়কট ভেঙে মাদুরো-বিরোধী যে জোট নির্বাচনে অংশ নিয়েছে তারা পেয়েছে শতকরা ১৮ ভাগ ভোট।

বিপুল বিজয়ের মাদুরো সাংবাদিকদের বলেন, জাতীয় সংসদের বিরোধীদের চরম আধিপত্যের দিন শেষ হয়েছে।

আবারও ভারতের লাদাখ সীমান্তে হাজার হাজার সেনা মোতায়েন করেছে চীন

ভারতের লাদাখ সীমান্তে হাজার হাজার সেনা মোতায়েন করেছে চীন। লাদাখ সীমান্তে সেনা মোতায়েন নিয়ে পাঁচরকমের ব্যাখ্যা দিচ্ছে চীন। গালওয়ান সংঘর্ষেরঘটনার সূত্র ধরে দুই দেশের সম্পর্ক ঘোরতর আঘাত পেয়েছে।

বুধবার চীনা সেনার বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়ে এমনটাই বললেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শংকর। লাদাখ সীমান্তে চীনের আগ্রাসন ও ভারতের প্রত্যুত্তরে পরিস্থিতি যে কতটা অগ্নিগর্ভ তা এদিন পরিষ্কার করেন জয়শংকর। -কলকাতা ২৪

কয়েকদফা সামরিক ও কূটনৈতিক আলোচনার পরও বেইজিংয়ের অভিসন্ধি নিয়ে প্রশ্ন তুলেন জয়শংকর। তিনি জানান, সীমান্তে প্রচুর পরিমাণে সেনা মোতায়েন করার পাঁচরকমের ব্যাখ্যা দিচ্ছে চীন।

এর ফলে দুই দেশের সম্পর্ক আরও খারাপ জায়গায় পৌঁছেছে। অস্ট্রেলিয়ার ‘Lowy Institute’-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে কোনও রাখঢাক না করেই জয়শংকর বলেন, বিগত ৩০ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে বর্তমানে চীনের সঙ্গে সম্পর্কের সবচেয়ে খারাপ পর্ব চলছে।

১৯৭৫ সালের পর গালওয়ান সীমান্তে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সৈনিকের মৃত্যু হয়েছে। লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর হাজার হাজার সেনা মোতায়েন করেছে চীন। তারা যুদ্ধের জন্য তৈরি হয়েই এসেছে। এর ফলে স্বভাবিকভাববেই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক প্রচণ্ড ধাক্কা খেয়েছে।

তিনি আরও বলেন, চিন চুক্তি মানছে না। এক্ষেত্রে দুই পক্ষের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপন করা বড় বিষয় নয়। ব্যাপার হচ্ছে চীন দ্বিপাক্ষিক চুক্তি লঙ্ঘন করছে। উল্লেখ্য, লাদাখে যে কোনও মুহূর্তে যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে ।