মতবিরোধ পরিহার করে মুসলিমদের এক হওয়ার ডাক দিলেন এরদোগান

বিশ্বের সব মুসলিমদের মতবিরোধ পরিহার করে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিগ এরদোগান।

তিনি বলেছেন, ইসলাম ধর্মের অবমাননা প্রতিরোধের জন্য প্রথমে নিজেদের সব মতবিরোধ পরিহার করে আমাদের মধ্যে ঐক্যবদ্ধতা গড়ে তুলতে হবে।

শনিবার ‘মুসলিম আমেরিকান সোসাইটির (এমএএস)-এর ২৩তম বার্ষিক সভায় একথা বলেন তিনি। খবর আনাদোলু এজেন্সির।

মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত বাক স্বাধীনতার মধ্যে পড়ে না বলেও জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান।

এমএএসের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, আপনারা অত্যন্ত বেদনার সঙ্গে লক্ষ্য করেছেন, ফ্রান্স বাক-স্বাধীনতার নাম দিয়ে মহানবী মুহাম্মাদ (সা.)-এর অবমাননা করছে। অথচ মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত বাকস্বাধীনতা থেকে অনেক দূরে। কারণ বাকস্বাধীনতা ও অবমাননা উভয়টি আলাদা বিষয়।

করোনাকালে যুক্তরাষ্ট্রের অসহায়-দরিদ্রদের সহায়তায় এমএএসের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন এরদোগান। করোনা মহামারীর মধ্যে মানবিকতার উৎকৃষ্ট নমুনা হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

এছাড়াও ফিলিস্তিন, জেরুজালেম, ইয়েমেন, সিরিয়াসহ বিশ্বের নিপীড়িত মুসলিম জনগোষ্ঠীর পাশের দাড়ানোর আহ্বান জানান বিভিন্ন ইস্যুতে মুসলিম বিশ্বের প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর এরদোগান।

আরও সংবাদ

দিল্লির মসজিদ গুলিতে আন্দোলনরত কৃষকদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা: প্রশংসা নেট দুনিয়ায়

নিউজ ডেস্ক বঙ্গ রিপোর্ট: মোদি সরকারের তিনটি কৃষি আইন এর বিরুদ্ধে হরিয়ানা পাঞ্জাব এর কয়েক হাজার কৃষক দিল্লি অভিমুখে রওনা দেয়। কাঁদানো গ্যাস, জলকামান ও লাঠিচার্জের পরেও দমানো যায়নি তাদেরকে। কৃষকরা পৌঁছে যায় দিল্লিতে এবং এই আইনগুলি বাতিল না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার প্রতিজ্ঞা গ্রহণ করে।

আন্দোলনরত কৃষকদের পাশে দাঁড়াতে দিল্লি বিভিন্ন মসজিদে খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। যে ঐতিহাসিক উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে প্রশংসার ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। টুইটার ব্যবহারকারী মোহাম্মদ আজমল খান একটি ছবি শেয়ার করেছেন এবং লিখেছেন দিল্লির বেশ কয়েকটি মসজিদে পাঞ্জাব এবং অন্যান্য রাজ্য থেকে আগত কৃষকদের জন্য খাবারের আয়োজন করা হয়েছে যেমনভাবে সিএএ এনআরসি বিরোধী আন্দোলন চলাকালীন সময়ে তাঁরা আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছিল। এবার তাদের পাশে দাঁড়ানো আমাদের পালা।

Several Mosques in Delhi have organized food for the farmers arriving from Punjab and other states.

Farmers stood by our side during CAA-NRC now it’s our turn for the sake of humanity. This very compassion & unity is bothering the intolerant rulers +#FarmersProtest #DelhiChalo pic.twitter.com/7CzJNJQ9GM

— Mohammad Ajmal Khan (@MohdAjmalKhan06) November 27, 2020

সমাজকর্মী নাদিম খান আরো লিখেছেন যে কিভাবে দিল্লির বেশ কয়েকটি মসজিদে খাবারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে কৃষকদের জন্য দিল্লি জুড়ে বেশ কয়েকটি মসজিদে রান্নাঘর স্থাপন করে বিনামূল্যে কৃষকদের খাবার বিতরণ দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে যথেষ্ট প্রশংসার দাবি রাখে।