মদিনার সনদে ভাস্কর্যের কথা উল্লেখ নেই: হেফাজতে ইসলাম

মদিনার সনদে ভাস্কর্যের কথা উল্লেখ নেই বলে জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নব নির্বাচিত আমীর আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী। তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে মদিনা সনদের কথা বলেছেন। কিন্তু সে সনদের কোথাও ভাস্কর্যের বিষয়ে বলা নেই। নেতা-নেত্রীর চেয়ে আমাদের প্রিয় নবী অনেক উপরে। কই তারও তো কোন ভাস্কর্য নেই।

আজ শুক্রবার হাটহাজারী উপজেলার পার্বতী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আল আমিন সংস্থা নামে একটি সংগঠনের আয়োজনে তিন দিনব্যাপী তাফসীরুল কোরআন মাহফিলের সমাপনী দিনের আলোচনায় যোগ দিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশের মাটিতে ভাস্কর্য তৈরি করতে দেয়া হবে না জানিয়ে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, আমার বাবারও যদি ভাস্কর্য তৈরি করা হয়; তাহলে সেটাও আমরা টেনে-হিঁচড়ে নিচে ফেলে দেব।

হেফাজতের আমীর বলেন, হেফাজত সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। এখানে কোন রাজনৈতিক পতাকা উড়ানো যাবে না। আমরা কোন রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে আসিনি। আমরা মোহাম্মাদ (সা.)-এর এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে এসেছি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের সকল নাস্তিকদের কবর রচনা করবে হেফাজত ইসলাম। এতে আমাদের উপর রহমত নাজিল হবে। একই সঙ্গে বাংলাদেশের মাটি থেকে ইসকনের কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে। তারা এ দেশে অশান্তি সৃষ্টি করছে। দেশে বর্তমানে ইসলামের যে জোয়ার উঠেছে তা কোন বাতিল শক্তি থামাতে পারে পারবে না।

এসময় তিনটি মৌলিক দাবি উপস্থাপন করেন হেফাজত আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।দাবিগুলো হল- (১) কাদেয়ানীদের অমুসলিম ঘোষনা করতে হবে। (২) ইসকনকে নিষিদ্ধ করতে হবে। (৩) ফ্রান্সের দুতাবাস বন্ধ করতে হবে (যতক্ষণ না তারা রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষমা না চায়)।

একই অনুষ্ঠানে সংগঠনটির যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখার কথা রয়েছে। হেফাজতে ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী বলেন, মাওলানা মামুনুল হক গতকাল রাতে চট্টগ্রামে এসে পৌঁছেছেন। বর্তমানে তিনি হাটহাজারীতে অবস্থান করেছেন। আজকে হাটহাজারীতে আল আমিন সংস্থার উদ্যোগে আয়োজিত তাফসীরুল কুরআন মাহফিলে তিনি বক্তব্য রাখবেন।