মার্কিন নির্বাচনে আরও এক ফিলিস্তিনি নারীর বিজয়

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে জয় পেয়েছেন ফিলিস্তিন বংশোদ্ভূত ইমান জোদেহ। জো বাইডেনের নেতৃত্বাধীন ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী হিসেবে কালারয়েডো এলাকার রিপাবলিকান প্রার্থী রবার্ট এনড্রিউসকে হারিয়ে তিনি মার্কিন কংগ্রেসের হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভ হিসেবে জয় পেয়েছেন। খবর মিডলইস্ট মনিটরের।

নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে বুধবার জয়ের খবর জানিয়ে সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমি পেরেছি। আমি সবার জন্য স্বপ্নের আমেরিকা বিনির্মাণে নিজেকে নিয়োজিত করব। আমি একজন মুসলিম হিসেবে গর্বিত, ফিলিস্তিনি আমেরিকান হিসেবে গর্বিত। আমি আমেরিকার নতুন প্রজন্ম। আর আমি আমার কালারয়েডো রাজ্যের যাদের প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করব আমার সেই কমিউনিটি ও জনগণের জন্য গর্ববোধ করছি।
এখন আমার কাজের সময়। ’

তার এক সমর্থক টুইটবার্তায় বলেন, ঈমান জোদেহ এমন একজন ডেমোক্র্যাট যিনি কালারয়েডো রাজ্যের হাউজ ডিস্ট্রিক্ট ৪১-এর ইতিহাসে প্রথম কোনো মুসলিম আইনপ্রণেতা।

এর আগে ফিলিস্তিনি আমেরিকান হিসেবে পুনরায় জয় পেয়েছেন মিশিগানের রাশিদা তালিব। এছাড়া মুসলিম নারী হিসেবে মিনেসোটা থেকে কংগ্রেসে নির্বাচিত হয়েছেন ইলহান ওমর।

কে এই ঈমান জুদেহ

জুদেহর বাবা মোহাম্মদ ও মা সিহাম অভিবাসী ও শরণার্থী হিসেবে ১৯৭৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কালারয়েডোয় আসেন। ঈমান জুদেহ জেনারেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশনে পোস্ট গ্রাজুয়েশন করেছেন। কালারয়েডো রাজ্যের বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে জড়িত ঈমান জুদেহ কালায়েডো উইমেন্স লবির বোর্ড মেম্বার। কালারয়েডোর বিভিন্ন অধিকার আন্দোলনে ব্যাপকভাবে সক্রিয়। কমিউনিটির শিক্ষিত মানুষ ও সমাজনেতাদের কাছে বিশেষভাবে গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করেছেন তিনি।

তার বাবা গত ৫ দশক ধরে ওই রাজ্যে ক্ষুদ্র ব্যবসা করছেন।

নিজের ওয়েবসাইটে জুদেহ লিখেছেন, আমাদের ঐতিহ্য, ইতিহাস, সংস্কৃতি ও ভাষা যাতে ভুলে না যাই সেজন্য আমার বাবা-মা গ্রীষ্মে ফিলিস্তিনে নিয়ে যান।

আরও পড়ুন

বিশ্বের প্রথম কুরআনিক ভিলেজ ও মসজিদ হচ্ছে মালয়েশিয়ায়

বিশ্বে এই প্রথম ‘কুরআনিক ভিলেজ ও মসজিদ নির্মাণ করতে যাচ্ছে মালয়েশিয়া। এটি মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরের সন্নিকটে দক্ষিণে পুত্রজায়ার টারাঙ্গানুতে নির্মিত হবে। এর স্থাপনার মাধ্যমে জ্ঞানের নগরীতে পরিণত হবে টারাঙ্গানু। ইতিমধ্যে এর নির্মাণ ব্যয়, অর্থের উৎস ও নির্মাণ স্থল বরাদ্দসহ বিভিন্ন বিষয় সুস্পষ্ট করেছে দেশটির সরকার। মালয়েশিয়ার মালয় মেইল, টাইম নিউজসহ অনেকে গণমাধ্যম তা প্রকাশ করেছে।

রাজধানী কুয়ালালামপুরের দক্ষিণে অবস্থিত পুত্রজায়ায় পর্যটকদের আকর্ষণ করতে, কুরআনিক জ্ঞানের প্রচার ও প্রসারে এবং আধুনিক এ শহরে বিদেশিদের স্থায়ীভাবে বসবাসের সুন্দর পরিবেশ তৈরিতে এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে দেশটি। এটি নশরুল কুরআন বিশেষ স্থাপনার অংশ বিশেষ। দেশটির ফেডারেল টেরিটরিমন্ত্রী আনুয়ার মুসা (Annuar Musa) এক টুইটবার্তায় মসজিদ ও কুরআনিক ভিলেজ নির্মাণের ঘোষণা দেয়। তাতে মসজিদ ও কুরআনি ভিলেজের একটি ছবিও পোস্ট করেন।

ইতিমধ্যে দেশটি এই কুরআনিক ভিলেজ ও মসজিদ নির্মাণে ২০ একর জায়গা বরাদ্দ দিয়েছে। এর নকশা করা প্রায় শেষ। আল্লাহর ইচ্ছায় আগামী বছর তথা ২০২১ সালের শুরুর দিকে এর নির্মাণ কাজ শুরু হবে বলে টুইটারে আশা প্রকাশ করেন এ মন্ত্রী।

কুরআনিক এ নগরী ও মসজিদ নির্মাণে ব্যয় হবে প্রায় ১ হাজার ৫০০ মিলিয়ন মালয়েশিয়ান রিংগিত। যার অর্ধেক বিনিয়োগ করবে দেশটির সরকার আর বাকি অর্ধেক বিভিন্ন দাতাগোষ্ঠী ও শুভানুধ্যায়ীদের থেকে সংগ্রহ করা হবে।