পহেলা জুলাই থেকে সবকিছু খুলছে নিউইয়র্ক

পহেলা জুলাই থেকে নিউইয়র্কে সবকিছু খুলে দেয়া হচ্ছে। জানিয়েছেন সিটি মেয়র বিল ডি ব্লাসিও। শহরের প্রায় শতভাগ বাসিন্দা এরই মধ্যে ভ্যাকসিনের আওতায় আসায় এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে, তুরস্কে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রুখতে ১৭ দিনের লকডাউন জারি করেছে প্রশাসন। এছাড়া, নেপালেও হঠাৎ করে সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় শুরু হয়েছে ১৫ দিনের লকডাউন।

অন্ধকার থেকে আলোর পথে যুক্তরাষ্ট্র, করোনা নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের এমন ঘোষণার একদিন পর, এবার নিউইয়র্ক সিটি মেয়র বিল ব্লাসিও জানালেন, আগামী পহেলা জুলাই থেকে নিউইয়র্কে খুলে দেয়া হবে সবকিছু।

বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে ব্লাসিও জানান, নিউইয়র্ক সিটির প্রায় ৮০ লাখ বাসিন্দা এরই মধ্যে টিকা গ্রহণ করায় এবং সংক্রমণের হার কিছুটা কমে আসায় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে নিউইয়র্ক সিটি প্রশাসন।

তবে, বিধিনিষেধ তুলে নেয়া হলেও স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলার ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

ব্লাসিও জানান, পহেলা জুলাই থেকে নিউইয়র্ক আবারও আগের রূপে ফিরবে। এর মধ্য দিয়ে আবারও মানুষ কাজে ফিরবে, নতুন নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। আসন্ন গ্রীষ্ম মৌসুম নিউইয়র্কবাসীর জন্য অবশ্যই বিশেষ কিছু হতে যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে পরিস্থিতির উন্নতি হলেও, ভিন্ন চিত্র তুরস্কে। দেশটিতে করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রুখতে প্রথমারের মতো জারি করা হয়েছে ১৭ দিনের লকডাউন।

শুক্রবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাতটা থেকে শুরু হয়ে লকডাউন চলবে আগামী ১৭ই মে পর্যন্ত। এ লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার শেষ কর্মদিবস থাকায় বিভিন্ন শহরের রাস্তাঘাট আর দোকানপাটে ছিল মানুষের উপচে পড়া ভিড়।

এদিকে, হঠাৎ করেই সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে ১৫ দিনের সর্বাত্মক লকডাউন।