ইমামদের জন্য মাসিক ভাতা চালু করেছেন ইমরান খান

পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে মসজিদের ইমামদের জন্য মাসিক ভাতা চালু করা হয়েছে। গত বুধবার পেশোয়ারে চেক বিতরণের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এই প্রকল্প চালু করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। যেসব ইমামের আয়ের অন্য কোনো উৎস নেই, তাদের আর্থিক সঙ্কট মেটাতেই এটা চালু করা হয়।

আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।ওই অনুষ্ঠানে ইমরান খান বলেন, আমাদের লক্ষ্য পাকিস্তানকে একটি ইসলামিক কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করা। আমরা গত ২৫ বছর ধরে এর জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

খাইবার পাখতুনখোয়ার প্রাদেশিক মুখপাত্র ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আলী সাইফ বলেন, নতুন এই প্রকল্পের মাধ্যমে ছয় হাজার ইমাম উপকৃত হবেন। তাদেরকে প্রতি মাসে ২১ হাজার রুপি করে দেয়া হবে। পাকিস্তানকে একটি ইসলামি কল্যাণ রাষ্ট্রে রূপান্তরের অংশ হিসেবে স্কিমটি চালু করা হয়েছে। প্রশংসনীয় এই উদ্যোগ দেশের অন্য প্রদেশগুলোতেও চালু করা উচিত।

এর আগে ইমরান খান দেশে পাকিস্তান কার্ড চালু করেছিলেন। এতে স্বাস্থ্য কার্ড ও রেশন কার্ডের মতো কল্যাণমূলক উদ্যোগগুলোকে যুক্ত করা হয়েছে। দেশটির সরকার প্রতি মাসে ৫০ হাজার টাকার কম উপার্জনকারী পরিবারগুলোকে সাহায্য করার জন্য ১২০ বিলিয়ন রুপি বরাদ্দ করেছে।

এর ফলে সাধারণ নাগরিকরা ঘি, ডালের মতো দৈনন্দিন ব্যবহারের পণ্যগুলোতে ৩০ শতাংশ ছাড় পাবে। এর পাশাপাশি দেশের ৬৩ লাখ শিক্ষার্থীর জন্য চার হাজার ৭০০ কোটি রুপির বৃত্তি কর্মসূচি চালু করা হয়েছে।

প্রায় পুরো দেশে তার সরকার স্বাস্থ্য বীমা কার্ড দিচ্ছে উল্লেখ করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী জানান, খাইবার পাখতুনখোয়ায় প্রতিটি পরিবারকে স্বাস্থ্য বীমা কার্ড দেয়া হবে। পাঞ্জাবের পরিবারগুলোকে জানুয়ারি থেকে স্বাস্থ্য বীমা কার্ড দেয়া শুরু হবে। এছাড়া বেলুচিস্তান ও গিলগিট-বালতিস্তানের সরকার শীঘ্রই সমাজের দরিদ্র অংশগুলোর জন্য স্বাস্থ্য বীমা কার্ড চালু করবে।