আফগানিস্তানের চলমান সমস্যা সমাধানে গোটা বিশ্বের সহযোগিতা চাইল তালেবান

আফগানিস্তানের তালেবান সরকারের মুখপাত্র জবিউল্লাহ মুজাহিদ সেদেশের জনগণের সমস্যা সমাধানে সহযোগিতার হাত বাড়াতে গোটা বিশ্বের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি ইরানের বার্তা সংস্থা ‘ইরানপ্রেস’-কে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে এই আহ্বান জানান।

জবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেন, সম্প্রতি ‘আফগানিস্তানের অর্থনীতি’ শীর্ষক যে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে সেটার বার্তা ছিল আফগান জনগণের সমস্যা সমাধানে গোটা বিশ্বের উচিত তালেবানের সঙ্গে নানা ক্ষেত্রে বিশেষকরে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা।

গোটা অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে অর্থনৈতিক সহযোগিতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ ক্ষেত্রে তালেবান ভালো কিছু পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে।

তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা নেওয়ার পর দেশটিতে অর্থনৈতিক সংকট দেওয়া দিয়েছে।

গত ১৯ জানুয়ারি আফগান প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে ‘আফগানিস্তানের অর্থনীতি’ শীর্ষক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এই সম্মেলনে আফগানিস্তানের প্রতিবেশী দেশগুলোর প্রতিনিধিদের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সেখানে আফগানিস্তানের অর্থনৈতিক সমস্যাসহ দেশটির নানা সংকট নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সূত্র: পার্সটুডে

আড়াই মিনিটের বিরতিতে নামাজ আদায় করে নিলেন মাহমুদউল্লাহ!

ফিল্ডিংয়ে নামার কিছুক্ষণের মধ্যেই পড়ে গিয়েছিল মাগরিবের আযান। কিন্তু ইনিংস চলতে থাকায় নামাজ আদায়ের সুযোগ পাচ্ছিলেন না মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। অতঃপর আড়াই মিনিটের টাইমআউট তথা বিরতি পেয়েই নামাজ পড়ে নিলেন ঢাকার অধিনায়ক।

বিকেল সাড়ে ৫টায় শুরু হয়েছে মিনিস্টার ঢাকা ও চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের মধ্যকার ম্যাচটি। যেখানে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমেছে চট্টগ্রাম। তাদের ইনিংসের নবম ওভার শেষে দেওয়া হয় আড়াই মিনিটের প্রথাগত স্ট্র্যাটেজিক টাইমআউট।

দুই দলের বাকি খেলোয়াড়রা যখন পানি পান করে নিজেদের সতেজ করার মাধ্যমে বাকি অংশের পরিকল্পনা সাজিয়ে নিচ্ছিলেন, তখন সুযোগ বুঝে উইকেটের পাশেই নামাজে দাঁড়িয়ে যান মাহমুদউল্লাহ। বুটজোড়া খুলে মাথার ক্যাপ উল্টে নিয়ে ফরজ তিন রাকআত নামাজ আদায় করেন ঢাকার অধিনায়ক।

টাইমআউটের জন্য নির্ধারিত আড়াই মিনিট শেষ হয়ে গেলেও মাহমুদউল্লাহর নামাজ তখনও শেষ হয়নি। তাই আরও প্রায় ত্রিশ সেকেন্ড অপেক্ষা করতে তারপর শুরু করা হয় দশম ওভারের খেলা।

জয়ের খোঁজে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা এবং মেহেদি হাসান মিরাজের নেতৃত্বাধীন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স।

মিরপুর শেরে বাংলায় টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ঢাকা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। অর্থাৎ মিরাজের চট্টগ্রাম প্রথমে ব্যাটিং করবে।

দুই দলই টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচ হেরেছে। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ফরচুন বরিশালের কাছে ৪ উইকেটে এবং মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা ৫ উইকেটে হারে খুলনা টাইগার্সের কাছে।

মিনিস্টার ঢাকা একাদশ
মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, নাঈম শেখ, জহুরুল ইসলাম, শুভাগত হোম চৌধুরী, আরাফাত সানি, ৭. রুবেল হোসেন, ৮. এবাদত হোসেন চৌধুরী, মোহাম্মদ শাহজাদ (উইকেটরক্ষক), আন্দ্রে রাসেল এবং ইসুরু উদানা।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স একাদশ
মেহেদি হাসান মিরাজ (অধিনায়ক), নাসুম আহমেদ, কেনার লুইস, উইল জ্যাকস, সাব্বির রহমান, আফিফ হোসেন, বেনি হাওয়েল, শামীম পাটোয়ারী, নাইম ইসলাম, শরিফুল ইসলাম ও মুকিদুল ইসলাম।

যে কবরস্তানে শুয়ে আছেন রাসূলের স্বজনেরা

পবিত্র মক্কা মুকাররমার জান্নাতুল মুয়াল্লা কবরস্তান সৌদি আরবের প্রাচীনতম এবং সর্ববৃহৎ কবরস্তান।

মসজিদুল হারাম থেকে মাত্র দুই কিলোমিটার দূরে এর অব্স্থান। এটিকে ম্ক্কাবাসীর কবরস্তানও বলা হয়। মক্কাবাসীরা নিজেদের স্বজনদের দাফনে এই কবরস্তানকে অগ্রাধিকার দেন। একইসাথে হজ ও ওমরাহ করতে আসা বিদেশী অতিথিরা ইন্তেকাল করলেও তাদের এখানে সমাহিত করা হয়।

জান্নাতুল মুয়াল্লা কবরস্তান খেলাফতে উমাইয়ার আগ পর্যন্ত মক্কা নগরীর সীমানার বাইরে ছিল। এই কবরস্তান সম্পর্কে আল্লাহর রাসূল সা: বলেন, ‘এটি ভালো জায়গা’।

এখানে উম্মুল মুমিনীন হজরত আয়েশা রা. ও রাসূল সা:-এর ছেলে কাসিমকে দাফন করা হয়েছে। একইসাথে হুজুর সা:-এর দাদা, চাচা ও বংশীয় স্বজনেরা এখানে সমাহিত। আসমা বিনতে আবু বকর, তার ভাই আব্দুর রহমান বিন আবু বকর, আসমা রা.-এর ছেলে আব্দুল্লাহ বিন জুবায়েরসহ রাসূলের অসংখ্য সাহাবি এখানে শুয়ে আছেন।

সূত্র : আলআরাবিয়া

আদালতের সামনেই মেয়ের ধর্ষককে গুলি করে মারল বাবা!

মেয়ের ধর্ষককে আদালতের গেটের সামনে গুলি করে হত্যা করেছেন ভারতের সীমান্ত রক্ষা বাহিনী বিএসএফের এক সাবেক কর্মকর্তা। শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) ভারতের উত্তরপ্রদেশ রাজ্যের গোরক্ষপুর জেলায় ঘটনাটি ঘটেছে।

এ ঘটনায় সেই বিএসএফের সাবেক কর্মকর্তা ও তার ছেলেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গুলিতে মৃত ব্যক্তির নাম দিলশাদ হুসেন (২৫)। তিনি ভারতের বিহার রাজ্যের মুজফফরপুর জেলার বাসিন্দা। তিনি দুই মাস আগে জামিন পেয়েছিলেন। অপহরণ এবং ধর্ষণের মামলায় ফের শুক্রবার গোরক্ষপুর আদালতে এসেছিলেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার দুপুর সোয়া একটার দিকে আদালতের গেটের সামনে আইনজীবীর জন্য অপেক্ষা করছিলেন দিলশাদ। তবে দিলশাদের আইনজীবী আসার আগেই সেখানে পৌঁছে যান সাবেক বিএসএফ কর্মকর্তা ভগবত নিশাদ এবং তার ছেলে নন্দলাল।

সুযোগ বুঝে নিজের লাইসেন্স করা পিস্তল থেকে দিলশাদের মাথা লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়েন ভগবত। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন দিলশাদ। এরপর ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান ভগবত ও তার ছেলে। এ ঘটনায় আদালত চত্বরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে ভগবত ও তার ছেলেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি ভগবতের নাবালিকা মেয়েকে অপহরণ এবং ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে দিলশাদের বিরুদ্ধে। এরপর ২০২১ সালের ১২ মার্চ হায়দরাবাদ থেকে দিলশাদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সে সময় ভগবতের মেয়েকে উদ্ধার করা হয়। এরপর দিলশাদকে কারাগারে পাঠানো হয়। দুই মাস আগে জামিনে মুক্তি পেয়েছিলেন দিলশাদ। তবে এবার ভগবতের গুলিতে হারাতে হয়েছে প্রাণ।

আফগানিস্তানে দূতাবাস খুলতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন: তালেবান

আফগানিস্তানে তালেবান নিয়ন্ত্রিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দাবি, কাবুলে স্থায়ী দূতাবাস খুলতে যাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। কাবুলে ইউরোপীয় দেশগুলোর কূটনীতিক কার্যক্রম চালানোর জন্য এ দূতাবাস খোলা হবে। শুক্রবার এমন সংবাদ প্রকাশ করেছে তোলো নিউজ।

আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আব্দুল কাহার বলখি তার টুইটার অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে বলেন, তালেবান কর্তৃপক্ষের সাথে কয়েক দফা বৈঠকের পর আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে এ স্থায়ী দূতাবাস খোলার সিদ্ধান্ত নেয় ইউরোপীয় ইউনিয়ন। ওই সকল বৈঠকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাথে এ দূতাবাস খোলার বিষয়ে বোঝাপড়া হয়েছে।

আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আরো বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২২০ মিলিয়ন ইউরোর মানবিক সাহায্য ছাড়াও অতিরিক্ত ২৬৮ মিলিয়ন ইউরো অর্থ দিয়ে সহায়তা করবে। এসব অর্থের একটা অংশ শিক্ষকদের বেতন পরিশোধে ব্যবহৃত হবে।

এ সপ্তাহের শুরুতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ঘোষণা দিয়েছে যে তারা আফগানিস্তানে বেশ কয়েকটি প্রকল্প চালু করছে। এরপরেই এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়।

আফগানিস্তানে এখন অর্থনৈতিক সঙ্কট চলছে। আফগানিস্তানের এ অর্থনৈতিক সঙ্কট মোকাবেলায় এবং আফগান জনগণকে সহায়তা দিতে এসব প্রকল্প চালু করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলেছে, আফগান জনগণের শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধিতে এসব সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

সূত্র: তোলো নিউজ

অতিরিক্ত আইজিপি হচ্ছেন মনিরুলসহ ৭ কর্মকর্তা

বাংলাদেশ পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) সমমর্যাদার সাত কর্মকর্তাকে অতিরিক্ত আইজিপি পদে পদোন্নতি দেয়ার জন্য সুপারিশ করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। সুপারিশকৃত সাতজন ১২তম ও ১৫তম ব্যাচের কর্মকর্তা।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) সুপারিশটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগে পাঠানো হয়েছে। পদোন্নতির এ সুপারিশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২১ জানুয়ারি অনুমোদন করেছেন।

পদোন্নতির জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত ১২তম ব্যাচের কর্মকর্তারা হলেন- পুলিশ সদরদফতরের ডিআইজি আবু হাসান মুহম্মদ তারিক, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার ও কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের প্রধান ডিআইজি ড. হাসান উল হায়দার।

১৫তম ব্যাচের কর্মকর্তারা হলেন- অতিরিক্ত আইজির চলতি দায়িত্বে থাকা পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) প্রধান মো: মনিরুল ইসলাম, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার (বিএমপি) মো: শাহাবুদ্দিন খান, শিল্প পুলিশের প্রধান ডিআইজি মাহবুবুর রহমান ও ময়মনসিংহ রেঞ্জ ডিআইজি ব্যারিস্টার মো: হারুন অর রশিদ।

আওনা ইউনিয়নে একটা রাজাকারও জন্মগ্রহণ করেনি: মুরাদ

সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেছেন, ‘বাংলাদেশের এমন কোনো জায়গা নেই যেখানে কোনো রাজাকার জন্মগ্রহণ করেনি। কিন্তু জামালপুরের সরিষাবাড়ীর উপজেলার আওনা ইউনিয়নে একটি রাজাকারও জন্মগ্রহণ করেনি, এটা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ঘাঁটি এবং সেই পবিত্র মাটি।’

শনিবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে সরিষাবাড়ী দৌলতপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মরহুম আমিনুর রহমান তালুকদারের জানাজায় তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, বিচারপতি মাহমুদুল হাসান তালুকদার সরিষাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন পাঠানসহ আরও অনেকে।

উল্লেখ্য, মন্ত্রিত্ব যাওয়ার পর এই প্রথম ডা. মুরাদ হাসান তার নির্বাচনী এলাকায় তার আপন চাচার জানাজায় অংশগ্রহণ করেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মরহুম আমিনুর রহমান তালুকদারকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় জানাজা শেষ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

হজরত মুহাম্মদ (সা:)কে অবমাননা; নারীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে পাকিস্তান আদালত!

হজরত মুহাম্মদ (সা:)কে অবমাননায় মৃত্যুদণ্ড

হজরত মুহাম্মদ (সা:) এবং তার স্ত্রীদের একজনকে নিয়ে অপমানজনক পোস্ট শেয়ার করায় এক নারীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে পাকিস্তানের একটি আদালত।

উত্তর পাকিস্তানের রাওয়ালপিন্ডির ট্রায়াল কোর্ট বুধবার দেশটির কঠোর ব্লাসফেমি আইনের অধীনে আনিকা আতিক (২৬) নামের ওই নারীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন।

২০২০ সালের মে মাসে দায়ের করা ওই মামলার বিচারক আদনান মুশতাক রায়ে লিখেছেন, ‘অভিযুক্ত নারী তার হোয়াটসঅ্যাপ ম্যাসেজে যে নিন্দামূলক উপাদান শেয়ার করেছেন, তা অভিযোগকারীর জন্য একজন মুসলিম হিসাবে সহনীয় ছিল না।’

নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আনিকা বলেন, ‘অভিযোগকারী হাসনাত ফারুক তার প্রতি বন্ধুত্বপূর্ণ হতে অস্বীকার করায় ইচ্ছাকৃতভাবে আমাকে একটি ধর্মীয় আলোচনায় টেনে নিয়ে ব্ল্যাকমেইল করেছেন।’ আলজাজিরা।

আমলা দিয়ে সুশাসন হয় না: ডা. জাফরুল্লাহ

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, আমলাদের দিয়ে সুশাসন কায়েম করা যায় না। এই আমলাদের যারাই আপনার সঙ্গে আজকে মিনমিন করছে, তারাই একটা সময় আপনাকে বেঁধে নিয়ে আসবে।

আজ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে গণঅধিকার পরিষদের ‘মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ও আমাদের করণীয়’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন।

গণঅধিকার পরিষদের আহ্বায়ক ড. রেজা কিবরিয়া সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল, পরিষদের সদস্য সচিব নুরুল হক নুরসহ গণ অধিকার পরিষদের নেতারা অংশ নেন। ডা. জাফরুল্লাহ বলেন,

তিন মাসের একটা তত্ত্বাবধায়ক সরকার কোনো পরিবর্তন আনতে পারবে না। কমপক্ষে দুই বছরের একটা জাতীয় সরকার প্রয়োজন। তবে প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের মাধ্যমে এটা হতে হবে। তিনি বলেন, আমি সব সময় প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি- আপনি আজকে বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে যে অবিচার করেছেন,

সেই অবিচার যদি আপনার সঙ্গে হয়, তাহলে কেউ যদি রাস্তায় না-ও নামে- আমি অবশ্যই নামবো। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের উদ্দেশ্যে জাফরুল্লাহ বলেন, আপনি (তারেক রহমান) যদি ভালো রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ চান- তাহলে দেশের রাজনীতিতে আপাতত নাক গলানো বন্ধ করেন।

আর আপনার মেয়েকে ভালো পড়াশোনা করিয়ে দেশে রাজনীতি করতে পাঠান, সে ভালো জনসমর্থন পাবে। আর অন্য রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে দেখা করেন- তাদের অফিসে গিয়ে, আপনার অফিসে ডেকে না। সবার মতামত নিয়ে একটা কল্যাণ রাষ্ট্র গঠন করবেন, তাহলেই আপনি জনগণের সমর্থন পাবেন।

সুত্র: বিডি প্রতিদিন

পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে নীলক্ষেত অবরোধ শিক্ষার্থীদের!

ঢাবি অধিভুক্ত সরকারী সাত কলেজে শিক্ষার্থীরা চলমান ডিগ্রী পরীক্ষা স্থগিত করার প্রতিবাদে নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করেছেন অধিভুক্ত সাত কলেজের ডিগ্রির শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থী জানায়, কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে তারা জানতে পারেন পরীক্ষা স্থগিত। আজই তাদের শেষ পরীক্ষা ছিলো। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ২০১৮ সালে দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষা অনুষ্ঠীত হওয়ার কথা থাকলেও তা হচ্ছে প্রায় ৪ বছর পর ২০২২ সালে। গত ২১ নভেম্বর পরীক্ষা শুরু হয়ে আজ শেষ হবার কথা থাকলেও তা স্থগিত করা হয়েছে।

কবি নজরুল সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী কাওসার হোসেন বলেন, আমরা এমনিতেই ভয়াবহ সেশনজটে আছি। দীর্ঘ দিন অপেক্ষার পর আমরা পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পেয়েছি। আজ শেষ পরীক্ষা থাকলেও কেন্দ্রে এসে জানতে পারি পরীক্ষা স্থগিত। আমাদের সঙ্গে এমন প্রহসন কেন? আজকের পরীক্ষা নিলে কর্তৃপক্ষের কি এমন হতো?

সাত কলেজের ডিগ্রির এসব শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা ইডেন কলেজে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

বাচাইকৃত পোস্ট